Travel

header ads

গার্লফ্রেন্ড কে ধর্ষণ | A Very Heart-Touching Bengali Love Story | Bangla Golpo

Bangla Golpo পড়তে তো আমাদের সবার ভালো লাগে। যখনই একটু মন খারাপ হয় তখনই গল্পের বই তা খুলে নিয়ে বসি। বৃষ্টিভেজা দিনে জানালা খুলে ভেজা মাটির গন্ধে কার না গল্পের বই পড়তে ভালো লাগে -কিন্তু আজ আমাদের কাছে সেই সময়টা কই ???
সব কিছু এখন অনলাইন এই হয়ে যাচ্ছে তো গল্প পড়া আবার বাকি থাকবে কেন ? আজ আমরা পড়বো খুব Heart-Touching Love Story;
A Very Heart-Touching Bengali Love Story
Collected from Google.







Heart-Touching Bengali Love Story:- " গার্লফ্রেন্ড কে ধর্ষণ "

হটাৎ রিয়ার জ্ঞান ফিরে এলো, তখন সে নিজেকে একটি
কক্ষে আবিষ্কার করলো এবং বলে উঠলো ....
রিয়া: এই সোহান তুমি আমাকে এখানে নিয়ে আসলে কেনো ? 
আর আমার হাত পা বেঁধে রেখেছো কেন ?
সোহান: চুপ! একদম চুপ! কোনো কথা বলবি না, তুই একটা মিথ্যাবাদী,
 তুই আমার সঙ্গে বেঈমানি করেছিস। 
রিয়া: প্লিজ সোহান! সত্যি আমি তোমার কথা কিছু বুঝতে পারছি না,,, 
আর আমাকে এইখানে নিয়ে এসে হাত পা বেঁধে রাখার মানেটা কি সোনা? 
আমার কিন্তু খুবই ভয় হচ্ছে। 
সোহান: হা হা..হা হা .......তোকে আজকে সবকিছু বুঝিয়ে দিবো।  
আমার সঙ্গে প্রেম এর নাম-এ  ছলনা।  ওই তুই কি ভেবেছিস? 
তুই আমার মন নিয়ে খেলা করবি আর আমি কিছুই বুঝতে পারবো না। 
সত্যি তোকে বিশ্বাস করাটা আমার অনেক বড়ো ভুল হয়েছে ,,,
তাই বিশ্বাস যেহুতু করেছি, তোকে আমি আমার করেই ছাড়বো আর 
তুই ভালোই জানিস আমি যা বলি তাই করি। 
রিয়া: প্লিজ সোহান! তুমি আমাকে কিছু না বলে কেন এমন করছো? 
আমিতো  কিছুই বুঝতে পারছি না ,,,
সোহান : বুঝবি কি ভাবে .....? তুই তো একটা লোভী মেয়ে .., 
তোর তো টাকা আর নতুন ছেলে এর ওপরে সব নেশা,
..................তুই কি ভাবে বুঝবি ভালোবাসার মানে কী!
তাই ডিসিশন ফাইনাল! 
হা হা হা ,,, ( বলতে বলতে সোহান তার শার্ট খুলতে লাগলো, )
রিয়া: সোহান! প্লিজ তুমি আমাকে বিশ্বাস করো ,,, আমি এমন কিছুই  করি নি।
---যার জন্য তুমি আমাকে ভুল বুঝছো। 
প্লিজ সোহান!......... প্লিজ!
সোহান: ওই চুপ! আর একটা কোথাও বলবি না;
ছি ...! আমারও প্রথমে বিশ্বাস হয়নি।  কিন্তু যখন নিজে চোখে দেখলাম
তখন র না করে পারলাম না। 
রিয়া: সোহান! কি দেখেছো আমাকে বোলো? 
আমি তোমাকে সব সত্যি খুলে বলছি। 
সোহান: যা দেখার আমি দেখেছি ,,,  
এখন আমার কাজের সময় কোনো কথা বলবি না..., 
আর একবার যদি কথা বলিস তো একেবারেই মেরে ফেলবো। 

বলতে বলতে সোহান আস্তে আস্তে করে রিয়ার কাছে গেল এবং 
তাকে খাটের ওপরে চেপে ধরে জোর করে ঠোঁটে কিস করতে 
লাগলো আর আস্তে আস্তে নিচে নামতে লাগলো এবং একপ্রকার 
জোর আর অমানবিক অত্যাচার করে তার কাজটি সম্পূর্ণ করলো। 
শেষে তার ধারালো নখ দিয়ে উরুতে আঁচড়ে দিল -দিয়ে বললো 
আমার চিহ্ন করে দিলাম 
-----------এইদিকে রিয়া কষ্টে ছটপট করতে করতে অজ্ঞান হয়ে গেল। 

সোহান রিয়া কে রুমে ফেলে রেখেই তার বন্ধুর কাছে চলে আসলো। 
তার বন্ধু: (নাম হাসান ) দোস্ত কাজটা না করলে পারতিস না?
সোহান: না করলে ওকে হারিয়ে ফেলার ভয় ছিল আর আমি 
ওকে অনেক বেশি ভালোবাসি - ওকে হারাতে চাই না।  
এবার ও সব কিছু ছেড়ে আমাকে ভালোবাসবে। 
হাসান: দোস্ত! ভালোবাসার এইটা প্রমান দিলি?
সোহান: দোস্ত দেখ! আমি কাজটি এই জন্য করেছি, 
যেন ওকে শুধু আর আমিই পাই কারণ এই কথা শুনলে 
আর কেও তাকে বিয়ে তো দূরের কথা -তার কাছেও আসবে না, 
কিন্তু সাময়িক ভাবে কিছু অপমানিত হবো,
নো প্রবলেম, ওর জন্য এই টুকু কষ্ট কিছুই না। 
হাসান : ভাই তুই ভালো বুঝিস আমি কিছু জানি না। 
আর এখন ও তোকে আর ভালোবাসবে কি না সেটার প্রতিও সন্দেহ ....!

A Very Heart-Touching Bengali Love Story
Collected from Google.
ওহ এত সময় শুধু কথায় বলছি ,,,
কিন্তু মূল ঘটনা কি ছিল আমরা তো আর জানি না ,,, 
তো চলুন মূল ঘটনা টি জেনে নিই............
------------সোহান আর রিয়া এর রেলশন আল প্রায় ৪ বছর , 
কিন্তু হটাৎ রিয়া সোহান এর সাথে কথা বলা অনেকটা কমিয়ে দেয় ,,, 
সোহান এই নিয়ে তাকে জিজ্ঞেস করলে সে বলে এখন পড়াশোনার 
অনেক চাপ কারণ সামনে পরীক্ষা আর এখন 
নাকি সে বাড়ির কাজও করছে .....তাই তেমন সময় হয় না। 

 যাই হোক , একদিন বিকেলে সোহান একটি কাজে বাজার গিয়েছিলো 
তো বাজার থেকে আসার সময় তাদের নজরে পড়লো রিয়া 
একটি ছেলের সঙ্গে মোটরসাইকেলে কোথায় যাচ্ছে,
আর ইদানিং সোহান রিয়াকে ফোনেও ব্যাস্ত পাচ্ছে,
---জিজ্ঞেস করলেও বলে ভাই কিংবা মামা এর সঙ্গে কথা বলছিলো। 
আজ এটা দেখে সোহান এর মনে পুরোপুরি সন্দেহ চলে এল এবং 
সে ভাবলো পড়াশোনা তা তো সমস্যা না,,, 
মূল সমস্যা হলো রিয়া আর তাকে ভালোবাসে না,,,
কারণ রিয়া নিজেই বলেছে তার পুরোনো জিনিস 
বেশিদিন ভালো লাগে না, আর নতুন নতুন ছেলে 
এর সঙ্গে গল্প করতে সে খুবই ভালোবাসে।
-এই নিয়ে অবশ্য এই আগেও অনেকবার ঝামেলা হয়েছে 
কিন্তু আবার ঠিক ও হয়েগিয়েছে। 
কিন্তু এবার তার বন্ধু এর সঙ্গে কথা বলে তারবন্ধুর পুরোনো বাড়িতে নিয়ে যাই রিয়া কে। 

তারপর যা কিছু হলো সবই আপনাদের সামনে ,,, 
সোহান এই ভাবে কিছুক্ষন থাকার পরে রুমে চলে গেল।
 .........গিয়ে দেখে রিয়ার জ্ঞান ফিরেছে এবং সে খুব কান্না করছে 
কারণ সে এটা কোনো দিনও আসা করে নি। 
সোহান বলে ওঠে........
সোহান: আমাকে বিশ্বাস করো আর না করো ,,, 
অন্য ছেলে এর সঙ্গে দেখলে বা আমাকে মিথ্যে কথা বললে 
আবার তোমার এই অবস্থা হবে........, মনে রেখো।
রিয়া: কি করবি তুই! আর কি ই বা পারবি তোরা ...?  
আমরা তো খেলার পুতুল,,, খেলা শেষ তো ছুড়ে ফেলে দিবি....,,,
সোহান:  রিয়া,,, এত কথা বলতে পারবো না ...,,,
তোমাকে আমার সারাজীবন এর করে রাখতে ,,,
আর কোনো কথা নেই , আমি তোমাদের বাড়ি বিয়ের প্রস্তাব পাঠাবো 
সুন্দর করে রাজি হয়ে যেও আর নয়তো এই ছবি গুলা 
কিন্তু আছে বলে তার দিকে জামা কাপড় গুলো ছুড়ে মেরে 
রেডি হতে বলে আবার বাইরে চলে আসে
 ---এদিকে রিয়া কাঁদতে কাঁদতে জামা কাপড় পরে 
আবার সেখানেই বসে রইলো,,,---------

Heart-Touching Bengali Love Story এর পরবর্তী অংশ পড়ার জন্য গল্পটি শেয়ার করুন এবং আমাদের facebook page -এ লাইক দিয়ে রাখুন। Bangla Golpo টি ভালো লাগলে একটাই রিকুয়েস্ট যে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। সাথে থাকবেন ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন:
 >>  আমিই সেই মেয়ে!!!
 >>  মানুষ প্রেমে পড়ে বার বার!!!

Post a Comment

1 Comments